পিরোজপুর জেলা

  • ইয়াসিন প্রধান সাজিদ 
  • জুলাই ১৯, ২০২০

পিরোজপুর জেলা বাংলাদেশের দক্ষিণাঞ্চলের বরিশাল বিভাগের একটি প্রশাসনিক অঞ্চল। পিরোজপুরের উত্তরে বরিশাল জেলা ও গোপালগঞ্জ জেলা, দক্ষিণে বরগুনা জেলা, পূর্বে ঝালকাঠি জেলা ও বরগুনা জেলা এবং পশ্চিমে বাগেরহাট জেলা ও সুন্দরবন অবস্থিত।  পিরোজপুর জেলা ৭টি উপজেলা, ৭টি থানা, ৪টি পৌরসভা, ৫২টি ইউনিয়ন ও ৩টি সংসদীয় আসন নিয়ে গঠিত। জেলাটির আয়তন মোট ১,২৭৭.৮০ বর্গকিমি জনসংখ্যা মোট ১১,১৩,২৫৭ এবং জনঘনত্ব ৮৭০/বর্গকিমি। 

২০১১ সালের আদমশুমারি অনুযায়ী পিরোজপুর জেলার মোট জনসংখ্যা ১১,১৩,২৫৭ জন। এর মধ্যে পুরুষ ৫,৪৮,২২৮ জন এবং মহিলা ৫,৬৫,০২৯ জন। মোট পরিবার ২,৫৬,০০২টি। পিরোজপুর জেলার সাক্ষরতার হার মোট ৬৪.৩১ %। বর্তমান পিরোজপুর নামটি এ ফিরোজপুর নাম থেকেই এসেছে বলে মনে করা হয়। মোগল সম্রাট শাহসূজার  পুত্র ফিরোজশাহের নামে 'ফিরোজপুর' এবং পরে  'পিরোজপুর' হিসেবে নামকরণ করা হয়েছে। 

বর্তমান পিরোজপুর জেলা বঙ্গোপসাগরের জোয়ার-ভাটার পলিরেণুতে গড়া একটি ভূ-ভাগ। সমুদ্রের লোনাজল স্নাত হয়ে বদ্বীপের দক্ষিণভাগে সাগরবক্ষে একদিন যে মৃত্তিকা উঁকি দিয়েছিল, সেটিই কালক্রমে পরিণত হয়েছে জনপদে, মুখরিত হয়েছে জনকোলাহলে। পিরোজপুর জেলার দর্শনীয় কিছু উল্লেখযোগ্য স্থান হলো ডিসি পার্ক,শ্রীগুরু সংঘ কেন্দ্রীয় আশ্রম,কাউখালী, পিরোজপুর হুলারহাট নদী বন্দর,কদমতলা জর্জ হাই স্কুল,কবিআহসান হাবিব এর বাড়ি,আজিম ফরাজীর মাজার,সারেংকাঠী পিকনিক স্পট।

তথ্যঃ গুগল
লিখাঃ সাজিদ
 

Leave a Comment