দক্ষিণাঞ্চলের জেলা বরগুনা সম্পর্কে বিস্তারিত!

  • ইয়াসিন প্রধান সাজিদ
  • জুলাই ২৫, ২০২০

বরগুনা জেলা বাংলাদেশের দক্ষিণাঞ্চলের বরিশাল বিভাগের একটি প্রশাসনিক অঞ্চল। ২০০৭ সালে ঘূর্ণিঝড় সিডর-এর আঘাতে সবচেয়ে ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছিল এই বরগুনা।

জেলাটির আয়তন মোট ১,৮৩১.৩১ বর্গকিমি, জেলার জনসংখ্যা মোট ৮,৯২,৭৮১।

বরগুনা জেলার মোট জনসংখ্যা ৮,৯২,৭৮১ জন। এর মধ্যে পুরুষ ৪,৩৭,৪১৩ জন এবং মহিলা ৪,৫৫,৩৬৮ জন

পরিসংখ্যান অনুযায়ী জেলার জনঘনত্ব ৪৯০/বর্গকিমি। বরগুনা জেলার সাক্ষরতার হার মোট ৫৭.৬%।

বরগুনা দক্ষিণাঞ্চলের জেলা। এর দক্ষিণে পটুয়াখালী ও বঙ্গোপসাগর, উত্তরে ঝালকাঠি, বরিশাল, পিরোজপুর ও পটুয়াখালী; পূর্বে পটুয়াখালী এবং পশ্চিমে পিরোজপুর ও বাগেরহাট।

বরগুনা জেলা ৬টি উপজেলা, ৬টি থানা, ৪টি পৌরসভা, ৪২টি ইউনিয়ন ও ২টি সংসদীয় আসন নিয়ে গঠিত।

বরগুনা এর অর্থনীতি কৃষিনির্ভর। প্রধান শস্য ধান, চিনাবাদাম,সরিষা,সূর্যমুখী ও বিভিন্ন ধরনের ডাল।

বরগুনা জেলায় সরকারি বেসরকারি বেশ কিছু মাদ্রাসা, স্কুল, কলেজ ও ইন্সটিটিউট রয়েছে। এর মধ্যে অন্যতমঃ- বরগুনা সরকারি কলেজ,বরগুনা দারুল উলুম নেছারিয়া কামিল মাদ্রাসা,বরগুনা পলিটেকনিক ইন্সটিটিউট।

মহান মুক্তিযুদ্ধের স্মৃতি জাগরিত ভাস্কর্য "অগ্নিঝরা একাত্তর "বরগুনা জেলার পৌর শহরের টাউন হল চত্বরে অবস্থিত।

বরগুনা জেলা নারিকেল ও সুপারির জন্য বিখ্যাত।এ০ছাড়াও বরগুনা জেলার বিখ্যাত খাবার -চুইয়া পিঠা, চ্যাবা পিঠা, মুইট্টা পিঠা, আল্লান, বিসকি, তালের মোরব্বা, শিরনি, নাড়িকেলের সুরুয়া, চালের রুটি, মাছ, মিষ্টি।

বরগুনার উল্লেখযোগ্য কিছু দর্শনীয় স্থান হলোঃ-

পাথরঘাটার হড়িণঘাটার লালদিয়া সমুদ্রসৈকত

সোনাকাটা সমুদ্র সৈকত ও সোনাকাটা ইকোপার্ক

ফাতরার বন,বিহঙ্গ দ্বীপ বা ধানসিড় চর,শুভ সন্ধ্যা সমুদ্র সৈকত, নলবুনিয়া, তালতলী।

তথ্যঃ গুগল

Leave a Comment